মির্জাপুরে স্বাস্থ্য সহকারীসহ দুইজন করোনায় আক্রান্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে ৫৫০ জন

2523

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল ॥
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কমিউিনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি (স্বাস্থ্য সহকারীসহ) দুই জন করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত দুই শতাধিক বাড়ি লগডাউন করা হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৫৫০ জন। এ নিয়ে মির্জাপুরে ৫ জন করোনায় আক্রান্ত হলেন। আক্রান্ত ৫ জনের মধ্যে ৫৫ বছর বয়সী এক নারী মারা গেছেন। দুই জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন বলে আজ মঙ্গলবার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাকসুদা খানম জানিয়েছেন। নতুন আক্রান্তরা হলেন উপজেলা গবড়া কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি (স্বাস্থ্য সহকারী) মো. মঞ্জুরুল ইসলাম তালকদার রিয়াদ (৩৪) এবং আজগানা ইউনিয়নের তেলিনা গ্রামের মো. হযরত আরী মিয়া (৫০)। তাদের আইসোলেশনে পাঠানো হচ্ছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিস (সরকারী হাসপাতাল ) সুত্র জানায়, আজ ৫ মে মঙ্গলবার পর্যন্ত মির্জাপুরে পৌরসভাসহ ১৪ ইউনিয়নে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ও বিদেশ ফেরত ২৫৩ জন নারী পুরুষের করোনা ভাইরাসের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৫ জনের রক্তে করোনা পজিটিপ ধরা পরে। গত ৬ মার্চ প্রথমে নারায়নগঞ্জ ফেরত ভাওড়া গ্রামের অখিল সরকার করোনায় আক্রান্ত হন। তিনি বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী সরকারী হাসপাতালের আইসোলেশনে ১৫ দিন চিকিৎসা থাকার পর ২৪ এপ্রিল সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। সাটিয়াচড়া গ্রামের করোনায় আক্রান্ত আনন্দ রাজবংশী ঢাকায় জুয়েলারীর দোকানে স্বর্নের কাজ করতেন এবং কামারপাড়া গ্রামের মৃত এমারত মিয়ার স্ত্রী রেনু বেগম ঢাকায় বোনের বাসায় থাকতেন। গত ২৫ এপ্রিল এই দুই জন বাড়ি আসলে আশপাশের লোকজন বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক, সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্কাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. যুবায়ের হোসেন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাকসুদা খানমকে জানান। খবর পাওয়ার পর উপজেলা সরকারী হাসপাতালের স্বাস্থ্য সহকারীগন দুই জনের বাড়ি গিয়ে রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকার আইইডিআর এ পাঠান। তাদের রক্তের রিপোর্টে পজিটিপ আসে। উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় তাদের বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী সরকারী হাসপাতালের আইসোলেশনে পাঠানো হয়। রেনু বেগম ২৯ এপ্রিল মারা যান। ৭ দিন চিকিৎসার পর সাটিয়াচড়া গ্রামের আনন্দ রাজবংশী সুস্থ্য হয়ে গতকাল সোমবার বাড়ি ফিরেছে। আনন্দা রাজবংশীর বাড়ির আশপাশে ৬০ টি বাড়ি এবং রেনু বেগমের কামারপাড়া গ্রামের বাড়ির আশপাশের ৫০ বাড়িসহ ১১০ বাড়ি লগডাউন করা হয়েছে। নতুন আক্রান্ত দুই জনের আড়ির শতাধিক পরিবার লগডাউন করা হবে বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাকসুদ খানম বলেন, করোনায় আক্রান্ত দুইজনকে চিকিৎসার জন্য তাদের বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী সরকারী হাসপাতালের আইসোলেশনে পাঠানো হবে। তাদের বাড়ির আশপাশে শতাধিক পরিবার লগডাউন করে দেওয়া হয়েছে