করোনা যোদ্ধা মির্জাপুরের ইউএনও আবদুল মালেক করোনায় আক্রান্ত

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল ॥
করোনা যোদ্ধা টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আবদুল মালেক মোস্তাকিম করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ চত্তরের সরকারী বাস ভবনে আইসোলেশনে রয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মির্জাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) ডা. মাকসুদা খানম।
মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক মোস্তাকিমের একান্ত সহকারী (সিএ) মো. আব্দুল হালিম জানান, গত মার্চ মাস থেকে দেশে করোনা ভাইরাস দেখা দেওয়ার পর থেকেই তিনি মির্জাপুর উপজেলার বিভিন্ন প্রত্যন্ত এলাকায় জীবনের উপর ঝুঁকি নিয়ে করোনা মোকাবেলা ও প্রতিরোধের জন্য দিন রাত কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি এখন সকলের কাছে করোনা যোদ্ধা হিসেবেই পরিচিত। গত কয়েক দিন ধরে তার শ্বাস কষ্ট, জ্বর, শরীর ব্যথাসহ করোনার বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দেয়। গত ১৯ অক্টোবর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে করোনার নমুনা পরীক্ষা দেন। আজ বৃহস্পতিবার করোনা পরীক্ষার নমুনায় ফলাফল পজিটিপ আসে। করোনার নমুনা পরীক্ষার পুর্ব থেকেই তিনি সরকারী বাস ভবনের নিজ বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক মোস্তাকিম বলেন, করোনার ফলাফল পজিটিপ আসলেও তিনি মানষিক ভাবে সুস্থ্য আছেন। তিনি সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।
এদিকে করোনা যোদ্ধা মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক মোস্তাকিমের করোনা থেকে দ্রুত সুস্থ্যতা কামনা করেছেন টাঙ্গাইলের জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও প্রবীন রাজনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা মো. ফজলুর রহমান খান ফারুক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. একাব্বর হোসেন এমপি, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গনি, পুলিশ সুপার মি. সঞ্জিত কুমার রায়, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র সালমা আক্তার শিশূল, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মীর্জা মো. জুবায়ের হোসেন, মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান, বিআরডিবির চেয়ারম্যান মো. জহিরুল ইসলাম জহির, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা, ভাইস চেয়ারম্যান মো. আজাহারুল ইসলাম সিকদার, বিভিণœ সরকারী অধিদপ্তরের কর্মকর্তা এবং মির্জাপুরে কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্্র ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগন ।