সরকারের কুটনৈতিক তৎপরতায় রোহিঙ্গারা নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করতে পারছে— মির্জাপুরে বৃটিশ হাইকমিশনার

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল ॥
বাংলাদেশে নিযুক্ত বৃটিশ হাইকমিশনার রবার্ট সেটা টোনডিকসান বলেছেন সরকারের কুটনৈতিক তৎপরতায় দ্রুত সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাগন তাদের নিজ দেশে (মিয়ানমারে) প্রত্যাবর্তন করতে পারবেন। তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনের জন্য বাংলাদেশ এবং আর্ন্তজাতিক দেশগুলোর চাপের কারনেই মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিতে সম্মত হয়েছেন। অল্প দিনের মধ্যেই রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তন শুরু হবে। দুর্যোগের সময় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া বিষয়ে বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে বৃটিশ হাইকমিশনার বলেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে প্রধানমন্ত্রী যে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন সে জন্য তিনি নোবেল পাওয়ার যোগ্য। মহামারী করোনার মধ্যেও স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে কুমুদিনী পরিবার এবং সারা দেশে সুন্দর পরিবেশে শারদীয়া পুঁজা উদযাপন হওয়ায় তিনি সরকারের ভুয়সী প্রশংসা করেছেন। কুমুদিনী পরিবারকে তাদের সেবা দানের জন্য তার সরকারের পক্ষ থেকে সকল ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। তিনি আজ রবিবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে দানবীর রনদা প্রসাদ সাহা রায়বাহাদুরের নিজ গ্রাম মির্জাপুর সাহাপাড়া গ্রামে শারদীয়া পুঁজা মন্ডপ এবং কুমুদিনী কমপ্লেক্্র পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নে এ কথা বলেন।
এ সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেপুটি বৃটিশ হাইকমিশনার জাবেদ পাটওয়ারী, কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট অব বেঙ্গল (বিডি) লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমডি রাজিব প্রসাদ সাহা, পরিচালক শ্রী মতি সাহা ও সম্পা সাহা, কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায়, এজিএম (অপারেশন) অনিমেশ ভৌমিক লিটন, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. এম হালিম, কুমুদিনী নার্সিং কলেজের প্রিন্সিপাল সিস্টার রীনা ক্রুস, মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি)ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মীর্জা মো. জুবায়ের হোসেন, টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহীন মন্ডল, মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সকাল দশটার দিকে বৃটিশ হাইকমিশনার ও ডেপুটি হাইকমিশনার কুমুদিনী কমপ্লেক্্ের এসে পৌঁছালে কুমুদিনী পরিবারের সদস্যগন তাদের ফলেল শুভেচ্ছা জানান। লাইব্রেরী মিলনায়তনে চা চক্রের পর অতিবিৃন্দ কুমুদিনী হাসপাতাল, নার্সিং স্কুল এন্ড কলেজ, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজ, ভারতেশ্বরী হোমসসহ কুমুদিনী পরিবারের বিভিণœ সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান এবং মির্জাপুর সাহাপাড়া গ্রামে রনদা প্রসাদ সাহার পুঁজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন।